Back  

প্রযুক্তির বিবরণ

প্রযুক্তির নাম :স্বাভাবিক তাপমাত্রায় পেঁয়ারার পাল্প সংরক্ষণ

বিস্তারিত বিবরণ : 
বাংলাদেশে ফলের মধ্যে পেঁয়ারা একটি অন্যতম জনপ্রিয় ফল। পেঁয়ারা অত্যন্ত পুষ্টিগুণ সমুদ্ধ, সহজপাচ্য ও সুস্বাদু। পেঁয়ারা উৎপাদন মৌসুমে প্রচুর পরিমাণে ও সুলভ মুল্যে পাওয়া যায়। এটি ভিটামিন 'সি' সমৃদ্ধ একটি ফল এবং এতে কমলা থেকে প্রায় ২ থেকে ৫ গুণ বেশি ভিটামিন 'সি' পাওয়া যায়। কিন্তু অন্যান্য ফলের মত পেঁয়ারাও দ্রুত পচনশীল, ফলে ভরা মৌসুমে এর প্রচুর অপচয় ঘটে। পেঁয়ারা থেকে পাল্প প্রস্তুত করে তা সংরক্ষণের মাধ্যমে পরবর্তীকালে জ্যাম, জেলি, জুস ইত্যাদি তৈরি করে এর অপচয় অনেকাংশে রোধ করা সম্ভব। পেঁয়ারা থেকে পাল্প প্রস্তুত করে তা স্বাভাবিক তাপমাত্রায় সংরক্ষণের জন্য পুষ্টি ও পরিপক্ক পেঁয়ারা নিতে হবে। অত:পর সেগুলোকে পরিস্কার পানিতে ধুয়ে ছোট ছোট টুকরো করে কাটতে হবে। এবার টুকরোর ওজনের অর্ধেক পরিমাণে পানিতে (পেঁয়ারা ও পানি ২:১ অনুপাতে) প্রায় ৩০ মিনিট সময় সিদ্ধ করতে হবে যেন টুকরোগুলো নরম হয়। সিদ্ধ করা পেঁয়ারার টুকরোগুলোকে এবার হাতে চেপে ও ৪৫ মাইক্রন মাপের ছাকনিতে নিয়ে ছাল ও বিচিগুলো আলাদা করে পাল্প আহরণ করা হয়। এভাবে আহরিত পাল্পকে ১০০ ডিগ্রি সে. তাপমাত্রায় ৩ মিনিট পর্যন্ত তাপ প্রয়োগ করা হয় এবং এর সাথে প্রতি কেজিতে এক গ্রাম হিসেবে সাইট্রিক এসিড যোগ করা হয় যেন পাল্পের এসিডিটি ১% এর মত হয়। অত:পর এই পাল্পের সাথে প্রতি কেজিতে ২০০০ পিপিএম পটাসিয়াম মেটাবাই সালফাইট (কেএমএস) যুক্ত করে তা গরম অবস্থায় পরিষ্কার জীবাণুমুক্ত কাঁচের পাত্রে সংরক্ষণ করা হয়। স্বাভাবিক তাপমাত্রায় এ পাল্প প্রায় ৬ মাস সংরক্ষণ করা যায়।

পেঁয়ারা

স্বাভাবিক তাপমাত্রায় পেঁয়ারার পাল্প সংরক্ষণ


প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলুন।
 
Back