Back  

প্রযুক্তির বিবরণ

প্রযুক্তির নাম :সমন্বিত ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে বিভিন্নি ফলের মাছি পোকা দমন

বিস্তারিত বিবরণ : 
পোকার নামঃ ফলের মাছি পোকা

পোকার বৈশিষ্ট ও ক্ষতির ধরনঃ মাছি পোকা বিভিন্ন ফল যেমন আম, পেয়ারা, কমলা, কুল ইত্যাদির মারাত্মক ক্ষতি করে থাকে। মাছি পোকা সাধারণত আধা পাকা ফলে বেশি আক্রমণ করে। স্ত্রী মাছি তার লম্বা সরু ডিম পাড়ার নলের সাহায্যে ফলের ভিতরে ডিম পাড়ে। ডিম থেকে কীড়া বের হয়ে ফলের শাঁস খেয়ে বড় হতে থাকে, ফলে আক্রান্ত ফল পঁচে যায় ও খাওয়ার অনুপযুক্ত হয়ে পড়ে। প্রায় সারা বছরই মাছি পোকার আক্রমণ লক্ষ্য করা যায় তবে বর্ষাকালে এরা বেশি আক্রমণ করে থাকে।
দমন ব্যবস্থাপনা:

ক) পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন চাষাবাদ
পোকা আক্রান্ত ফল সমূহ সংগ্রহ করে ধ্বংস করে ফেললে মাছি পোকার বংশবৃদ্ধি অনেকটা কমিয়ে আনা সম্ভব। যেহেতু এ পোকার কীড়াসমূহ মাটির ১০-১২ সে:মি গভীর পুত্তুলিতে পরিণত হয় সেহেতু আক্রান্ত ফল কমপক্ষে ৩০ সেমি পরিমাণ গর্ত করে মাটিতে পুঁতে ফেলতে হবে অথবা হাত বা পা দিয়ে পিষে মেরে ফেলতে হবে।

খ) ফেরোমন ফাঁদের ব্যবহারঃ মিথাইল ইউজেনল নামক সেক্স ফেরোমন ব্যবহার করে বিপুল সংখ্যক পুরুষ মাছি পোকা আকৃষ্ট করে বিএআরআই উদ্ভাবিত পানি ফাঁদে আটকিয়ে ফেলে এ পোকার বংশ বৃদ্ধি রোধ করার মাধ্যমে এ পোকার আক্রমণ কমানো সম্ভব। সেক্স ফেরোমন ফাঁদ ফল পাকার ৪-৫ সপ্তাহ পূর্বে ১২-১৫ মিটার দূরে দূরে স্থাপন করতে হবে।

গ) এলাকা ভিত্তিক সমন্বিত উদ্যোগ: উপরোক্ত পদ্ধতিটির সামগ্রিক সফলতার জন্য সংশিস্নষ্ট এলাকার সকল চাষীদের সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ খুবই জরুরী।


ফলের মাছি পোকা

আম গাছে ফেরোমন ফাঁদ

কুল গাছে ফেরোমন ফাঁদ


প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলুন।
 
Back